"জীবন বাঁচাতে নৌ-শ্রমিকদের ১১দফা দাবী"
"জীবন বাঁচাতে নৌ-শ্রমিকদের ১১দফা দাবী"
বাংলাদেশ updated 4 months ago

"জীবন বাঁচাতে নৌ-শ্রমিকদের ১১দফা দাবী"

"জীবন বাঁচাতে নৌ-শ্রমিকদের ১১দফা দাবী"

নৌ-শ্রমিক ও নৌ-শিল্প রক্ষায় ঐক্যবদ্ধ সংগ্রাম গড়ে তুলি।১১ দফা দাবি আদায়ের আন্দোলনে বাংলাদেশ নৌ-যান শ্রমিক ফেডারেশনের নেতৃত্বে ঝাঁপিয়ে পড়ি।
বাংলাদেশ নৌ-যান শ্রমিক ফেডারেশন ঘোষিত ১১ দফা দাবি:-
১/ নৌ-যান শ্রমিকদের সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে নাবিক কল্যাণ তহবিল ও ট্রাস্টি বোর্ডের মাধ্যমে কন্টিবিউটরি প্রভিডেন্ট ফান্ড গঠন, নিয়োগপত্র-পরিচয়পত্র-সার্ভিসবুক প্রদানের গৃহীত সিদ্ধান্ত অবিলম্বে বাস্তবায়ন এবং কর্মস্থলে ও দুর্ঘটনায় মৃত্যুজনিত ক্ষতিপূরণ ১০ লক্ষ টাকা নির্ধারণ করতে হবে।
২/ সকল মালিক সমিতিসমূহকে এক প্লাটফর্মে এনে এককেন্দ্রীক সিরিয়াল মেইনটেইন করে চট্টগ্রাম বন্দর সহ সকল বন্দরে পণ্য পরিবহনে সমতা বিধান করতে হবে।
৩/ মালিক সমিতিসমূহের সাথে গেজেট বর্হিভূত দ্বিপাক্ষিক চুক্তিভুক্ত অমীমাংসিত দাবিসমূহ পুনঃনির্ধারণ করে চুক্তি সম্পাদন করতে হবে।
৪/ চট্টগ্রাম বন্দরে নিরাপদে জাহাজ রাখার জন্য শঙ্খ নদীকে প্রোতাশ্রয়ের উপযোগী করা,নদীর নাব্যতা রক্ষা, নৌ-পথ,নদী ও সকল সমুদ্র বন্দরে পর্যাপ্ত সংখ্যক মার্কা-বয়া-বাতি স্থাপন, চ্যানেলে জাল পাতা বন্ধ এবং প্রয়োজন অনুযায়ী পাইলট সরবরাহ নিশ্চিত করতে হবে।
৫/ চট্টগ্রাম চরপাড়া-জালিয়াপাড়া পর্যন্ত নাবিকদের নিরাপদে উঠানামার জন্য কমপক্ষে ৫টি ইজারামুক্ত ঘাট ও মেরিন ড্রাইভ ওয়ের উপর চরপাড়া ও জালিয়াপাড়া এলাকায় ২টি ফুটওভার ব্রিজ স্থাপন করতে হবে।
৬/ ভারতগামী শ্রমিকদের ল্যান্ডিংপাস, হলদিয়া পোর্টের লোডিং পয়েন্টে ড্রেজিংসহ ভারতীয় সীমানায় নদীর নাব্যতা রক্ষা ও নৌ-শ্রমিকদের নিরাপত্তা বিধান করতে হবে।
৭/ পরিক্ষায় অনিয়ম-দুর্নীতি বন্ধ, মালিক কর্তৃক নিশ্চিত হয়ে পরিক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেওয়া, প্রস্তুতি কোর্সে অংশগ্রহণ করার পূর্বে চক্ষু পরিক্ষায় উত্তীর্ণ বাধ্যতামূলক করা ও প্রত্যেক শ্রেণির পরিক্ষার জন্য বছরে একবার পরিক্ষার বিধান চালু, বাল্কহেডসহ ১০০ বিএইচপির উর্ধ্বের নৌ-যানে ৩য় শ্রেণির মাস্টার-ড্রাইভার, ১ম ও ২য় শ্রেণির নৌ-যানে ২জন মাস্টার-২জন ড্রাইভার এবং ১৫০০ বিএইচপির উর্ধ্বের সকল নৌ-যানে ইনল্যান্ড মেরিন ইঞ্জিনিয়ার (আইএমই) নিয়োগ বাধ্যতামূলক করতে হবে।
৮/ বালুবাহী নৌ-যানে কর্মরত শ্রমিকদের উপর পুলিশি হয়রানি ও চাঁদাবাজি বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ এবং আনলোড পয়েন্টে রাত্রিকালীন চলাচলের উপর নিষেধাজ্ঞা শিথিল করতে হবে।
৯/ আদালতের সিদ্ধান্ত ছাড়া মাস্টার-ড্রাইভার সনদ বাতিলের কর্মকান্ড বন্ধ ও অভিযান-১০ লঞ্চের ৪জন মাস্টার-ড্রাইভারের সনদের বাতিল আদেশ প্রত্যাহার এবং নৌ-দুর্ঘটনার সকল মামলা শুধুমাত্র নৌ-আদালতের এখতিয়ারভুক্ত করা, নৌ-আদালতে দ্রুত মামলা নিষ্পত্তির ব্যবস্থা গ্রহণ, প্রয়োজনে নৌ-আদালতের সংখ্যা বৃদ্ধি ও প্রতি মাসে দায়েরকৃত মামলার তালিকা প্রকাশ করতে হবে।
১০/ সামুদ্রিক মৎস শিকারী জাহাজ শ্রমিকদের গেজেটের পরিপূর্ণ বাস্তবায়ন এবং অন্যান্য সকল দাবি অবিলম্বে মেনে নিতে হবে।
১১/ নৌ-পথে সন্ত্রাস-চাঁদাবাজি-ডাকাতি-কালোবাজারি-জাহাজ ছিনতাই বন্ধ করা। উচ্চ পর্যায়ের তদন্তের মাধ্যমে নজিরবিহীন জাহাজ ছিনতাইয়ের শিকার এম.ভি. তাহমিদা রহমান খান-১, এম.ভি. দেওয়ান মেহেদী-২ ও এম.ভি. সী লাইন-৩ ছিনতাই ঘটনার মূল হোতাদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহণ এবং চট্টগ্রাম কারাগারে আটক এম.ভি. সী লাইন-৩ জাহাজের নিরপরাধ শ্রমিকদের নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে।
"দুনিয়ার মজদুর এক হও,
লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুতি নাও।"

0
0
0
0
0
0
0
0
0
0 Comments

Follow Us on Facebook