রোজা অবস্থায় মুখ ভরে থুথু আসলে, তার সম্পর্কে কি বিধান ?
রোজা অবস্থায় মুখ ভরে থুথু আসলে, তার সম্পর্কে কি বিধান ?
ধর্ম ও জীবন updated 3 months ago

রোজা অবস্থায় মুখ ভরে থুথু আসলে, তার সম্পর্কে কি বিধান ?

রোজা অবস্থায় মুখ ভরে থুথু আসলে, তার সম্পর্কে কি বিধান ?

রোজা অবস্থায় মুখ ভরে থুথু আসলে করণীয়:

১. থুথু গিলে ফেলা:

থুথু যদি মুখের বাইরে ফেলে না দেওয়া হয় এবং গিলে ফেলা হয়, তাহলে রোজা ভেঙে যাবে। কারণ, থুথুতে খাবারের অংশ থাকতে পারে। যদি খাবারের অংশ পাকস্থলীতে পৌঁছায়, তাহলে রোজা ভেঙে যাবে।

উদাহরণ:

রোজার সময় খাবার খাওয়ার পর মুখে খাবারের অংশ আটকে থাকতে পারে। যদি থুথুর সাথে সেই খাবারের অংশ গিলে ফেলা হয়, তাহলে রোজা ভেঙে যাবে।

২. থুথু বারবার ফেলা:

যদি বারবার থুথু আসে এবং তা ফেলতে হয়, তাহলে রোজা ভাঙবে না। তবে, অযথা বারবার থুথু ফেলা মাকরুহ। কারণ, এতে রোজার নিয়ম লঙ্ঘনের আশঙ্কা থাকে।

উদাহরণ:

ঠান্ডা লাগলে বারবার থুথু আসতে পারে। এই ক্ষেত্রে থুথু ফেলে দিলে রোজা ভাঙবে না।

৩. থুথুতে রক্ত বা পুঁস থাকলে:

থুথুতে যদি রক্ত বা পুঁস থাকে এবং তা গিলে ফেলা হয়, তাহলে রোজা ভাঙবে না। তবে, যদি রক্ত বা পুঁসের পরিমাণ বেশি হয় এবং তা পাকস্থলীতে পৌঁছায়, তাহলে রোজা ভেঙে যাবে।

উদাহরণ:

দাঁতের ফাঁক থেকে রক্ত বেরিয়ে থুথুর সাথে মিশে যেতে পারে। এই ক্ষেত্রে রক্তের পরিমাণ যদি অল্প হয় এবং তা গিলে ফেলা হয়, তাহলে রোজা ভাঙবে না।

৪. বমি বমি ভাব হলে:

যদি বমি বমি ভাব হয় এবং থুথুতে খাবারের অংশ মিশে যায়, তাহলে রোজা ভাঙবে না। তবে, যদি বমি করে ফেলা হয়, তাহলে রোজা ভেঙে যাবে।

উদাহরণ:

গর্ভবতী মহিলাদের রোজার সময় বমি বমি ভাব হতে পারে। এই ক্ষেত্রে থুথুতে খাবারের অংশ মিশে গেলে রোজা ভাঙবে না। তবে, যদি বমি করে ফেলা হয়, তাহলে রোজা ভেঙে যাবে।

৫. সন্দেহ হলে:

থুথু গিলে ফেলায় রোজা ভাঙে কিনা সন্দেহ হলে, সতর্কতার জন্য তা ফেলে দেওয়া উচিত। কারণ, সন্দেহের ক্ষেত্রে সাবধানতা অবলম্বন করা উত্তম।

উদাহরণ:

রোজার সময় থুথু গিলে ফেলে সন্দেহ হলে, সতর্কতার জন্য রোজা কেটে দেওয়া উচিত।

0
0
0
0
0
0
0
0
0
0 Comments

Follow Us on Facebook